বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৯ জুন ২০১৬

বাণিজ্যিক সাফল্যের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন


প্রকাশন তারিখ : 2016-06-28

দেশের পর্যটন শিল্পকে উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে নেওয়ার অন্যতম চালিকাশক্তি হিসেবে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন দ্রুত অগ্রসরমান শিল্প হিসেবে স্বীকৃত অর্জন করেছে সমগ্রবিশ্বে। বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে পর্যটন বর্ষ-২০১৬ হিসেবে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার প্রেক্ষিতে বিশ্বব্যাপী দেশের পর্যটন শিল্পের প্রচারণা চালানো হচ্ছে। বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের প্রসারে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে দেশি-বিদেশি পর্যটকদের পরিবহন, আবাসন, আপ্যায়ন ও বিনোদন প্রদানসহ বাংলাদেশে তাদের অবস্থানকে সুন্দর অভিজ্ঞতার রূপান্তরের মৌলিক কাজটি সম্পাদন করছে। এ ক্ষেত্রে দেশের পর্যটন শিল্পে দক্ষ মানবসম্পদ যোগান প্রদানের লক্ষ্যে ন্যাশনাল হোটেল এন্ড ট্যুরিজম ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ প্রদান করছে। এ প্রশিক্ষন কেন্দ্র থেকে প্রশিক্ষিত জনগোষ্ঠী দেশে বিদেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ গ্রহণ করেছে এবং অনেকে উদ্যোক্তা হিসেবে তাদেরকে ইতোমধ্যেই প্রতিষ্ঠিত করেছে। 

দেশের পর্যটন শিল্পের সেবার মান বৃদ্ধির মাধ্যমে পর্যটকদের সন্তুষ্টি অর্জন ও আয়ের গতিধারাকে অব্যাহত রাখার স্বার্থে দেশের পর্যটন আকর্ষণীয় স্থানে গড়ে তোলা আবাসন ও আপ্যায়ন ইউনিটসমূহের ইউনিট ব্যবস্থাপকদের অংশগ্রহণের আয়োজন করা হয় ৪০ তম বাণিজ্যিক সম্মেলন। সম্মেলনটি ২৮ জুন ২০১৬ তারিখে হোটেল অবকাশ এর সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলন অনুষ্ঠানটি ০২ (দুই) টি পর্ব যেমনঃ উদ্বোধনী ও সমাপনী অনুষ্ঠানে বিভক্ত হয়। দিনব্যাপী বাণিজ্যিক সম্মেলন অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী অধিবেশন শুরু হয় সকাল ১০-০০ টায়। এ সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের সম্মানিত চেয়ারম্যান ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অতিরিক্ত সচিব জনাব অপরূপ চৌধুরী, পিএইচ,ডি। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মুহম্মদ মউদুদউর রশীদ সফদার, অতিরিক্ত সচিব ও পরিচালক (অর্থ ও প্রশাসন), এবং  জনাব মোঃ শাহাদাৎ হোসেন, যুগ্ম-সচিব ও পরিচালক (পরিকল্পনা)। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ড. মোঃ নাসির উদ্দিন, যুগ্ম-সচিব ও পরিচালক (বাণিজ্যিক)। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বাপক মহা-ব্যবস্থাপক, অধ্যক্ষ এবং ব্যবস্থাপক ও বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ।

 

অনুষ্ঠানে পর্যটন শিল্পের অবূতপূর্ব সাফল্যের জন্য চেয়ারম্যান মহোদয় সংস্থার সকল পরিচালক, মহা-ব্যবস্থাপক, অধ্যক্ষ ও সর্বস্তরের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের অভিনন্দন জানান। বাণিজ্যিক ইউনিট সমূহের উপস্থিত চিত্র অনুযয়ী দেখা যায়, অন্যান্য বছরের তুলনায় এ শিল্প হতে আয় বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ। চলতি ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরের মে ২০১৬ পর্যন্ত অর্জন করেছে ৭১৪৩.৬২ লক্ষ টাকা। যা লক্ষ্য অর্জনের শতকরা ৬৯.৮৭%। চেয়ারম্যান মহোদয় আরো জানান, মোটেল সৈকত-চট্টগ্রাম এর শুভ উদ্বোধন ও পরিচালনার মাধ্যমে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন নিজেদের আরো উচ্চতর আসনে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছে। এছাড়াও বাংলাদেশ রেলওয়ের নতুন সংযোজন “সোনার বাংলা” রেল এর যাত্রীগণের খাদ্য সরবরাহ এবং দেশের সর্ববৃহত চিড়ীয়াখানা-ঢাকা এর প্রধান ফটক সংলগ্নে একটি রেস্তোরাঁ পরিচালনাসহ নতুন নতুন কর্মক্ষেত্র তৈরী করতে পেরেছে। ভবিষ্যতে আরো পরিকল্পনা গ্রহণ করা হবে এবং সেবার মানবৃদ্ধির মাধমে সংস্থার আয়বৃদ্ধিসহ উন্নত প্রশিক্ষনের মাধ্যমে দক্ষ জনবল তৈরী করে বেকারত্ব নিরশন করার বিষয়ে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।  

৪০ তম বাণিজ্যিক সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে আসন অলংকৃত করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী জনাব রাশেদ খান মেনন, এমপি।  অনুষ্ঠানের বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, পর্যটন শিল্প একটি বহুমাত্রিক শিল্প। এ শিল্পের উন্নয়নের মাধ্যমেই সম্ভব দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলা। তিনি পর্যটন করপোরেশন এর আর্থিক সাফল্যের ভূয়সী প্রশংসা করেন মোটেল সৈকত-চট্টগ্রাম নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় পরিচালনা করায় তিনি সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং পর্যটন শিল্পের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করেন। 

সমাপনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব এস, এম গোলাম ফারুক, সচিব, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়। তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন সফলতার সাথে বাণিজ্যিক কর্মকান্ড পরিচালনা করছে এবং গ্রাহক/পর্যটকদের সেবা প্রদানে সফল হয়েছে বলেই কাঙ্খিত লক্ষ অর্জনে সক্ষম হয়েছে। তিনি এ জন্য বাপক এর কর্মকর্তা/কর্মচারীগণের কাজের ভূয়সী প্রসংশা করেন। 

সম্মেলনের শেষ পর্যায়ে Manager of the Year, Performer of the Year, Best performer of the Year, Best Chef of the Year ইত্যাদি ক্যাটাগরীতে পুরষ্কার প্রদান করা হয়।

বাণিজ্যিক সম্মেলন শেষে মাননীয় মন্ত্রী ও সচিব মহোদয় বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন কর্তৃক আয়োজিত ইফতার ও দোয়া মাফফিল অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন এবং বাংলাদেশ পর্যটন কপোরেশন এর উত্তরোত্তর সমৃদ্ধির জন্য দোয়া কামনা করেন। 


Share with :

Facebook Facebook